• ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৮শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

গোয়াইনঘাটে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণ : ১২ঘন্টার মধ্যে আসামি গ্রেফতার

sylhetnewspaper.com
প্রকাশিত নভেম্বর ১৬, ২০২১
গোয়াইনঘাটে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণ : ১২ঘন্টার মধ্যে আসামি গ্রেফতার

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি:: চলতি বছরে উত্তর সিলেটের চাঞ্চল্য সৃষ্টি করা গোয়াইনঘাটে ৬বছরের শিশুকে ধর্ষণের দ্বায়ে শরিফ উদ্দিন (১৯) নামের এক যুবককে ১২ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করে চমক দেখালেন গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল চন্দ্র দেব।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্র জানায়,গোয়াইনঘাট উপজেলার পূর্ব আলীরগাঁও ইউনিয়নের হাজরাই গ্রামের তজম্মুল আলীর পুত্র মুদি দোকানদার শরিফ উদ্দিন (১৯) ১৫ নভেম্বর সোমবার সকাল ৭টায় পাশ্ববর্তী বাড়ির ছদ্মনাম রুমি নামের ৬বছরের এক কিশোরী মেয়ে স্থানীয় বারহাল বাজারে বিশেষ কাজের জন্য গেলে লম্পট মুদি দোকানদার শরিফ উদ্দিনের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে।

সরলমনা নাবালিকা রুমিকে ভোরবেলা একা পেয়ে এক পর্যায়ে শরিফ উদ্দিন তার দোকানের ভেতরে রুমিকে জোরপূর্বক টানাহেঁচড়া করে দোকানের ভেতরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে নাবালিক রুমি রক্তাক্তবস্থায় অঝোরে কেঁদে কেঁদে বাড়ি ফিরলে মা- বাবার অর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে।

এঘটনার খবর এলাকায় চাউর হলে তাৎক্ষণিক ধর্ষক শরিফ উদ্দিন গা ডাকা দিয়ে তার মামার বাড়ি পার্শ্ববর্তী জৈন্তাপুর উপজেলার তেলিজুরীতে চলে যায়। এদিকে শিশু ধর্ষণের ঘটনায় স্থানীয় বরহাল বাজার তথা গোয়াইনঘাট উপজেলায় চাঞ্চল্য সৃষ্টির খবর থানা পুলিশের কাছে আসলে তাৎক্ষণিক সমাধানকল্পে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল চন্দ্র দেব একদল চৌকস অফিসারদের নিয়ে ভিকটিম রুমির বাড়তি অবস্থান করে রুমির শারিরিক অবস্থার খোঁজ খবর নিয়ে গুরুতর আহত রুমিকে ওসিসির জন্য সিওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরবর্তীতে রুমির মা হাজেরা বেগম বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন যাহার নং-১৪(১১)২১।

মামলা দায়েরের পরপর এলাকার সচেতন মহলের নিরংকুশ সহযোগিতায় ও সিলেটের সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র দিক নির্দেশনায় এবং থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল চন্দ্র দেব’র স্বার্বক্ষনিক তৎপরতায় থানার এসআই মতিউর রহমান সঙ্গীয় অফিসারদের নিয়ে চিরুনী অভিযান পরিচালনা করে ঘটনার ১২ঘন্টার মধ্যে রাত ২টায় ধর্ষক শরিফ উদ্দিনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন।

এ ঘটনায় গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল চন্দ্র দেব প্রতিবেদককে জানান, ন্যাক্ষারজনক এঘটনার পরপরই পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে ধর্ষক শরিফ উদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে এবং প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি শরিফ উদ্দিন ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। তিনি আরও বলেন, সকল প্রকার অপরাধ ও অপরাধী দমনে থানা পুলিশের নিরংকুশ দ্বায়িত্ব পালনে পুলিশ স্বার্বক্ষনি তৎপর রয়েছে। যার অংশ হিসেবে শিশু ধর্ষণ ঘটনার কিছু সময়ের মধ্যে ধর্ষক শরিফ উদ্দিনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •