• ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৭শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

‘আইএস যোদ্ধা’ অপবাদ দেওয়ায় তসলিমাকে ধুয়ে দিলেন ক্রিকেটররা

sylhetnewspaper.com
প্রকাশিত এপ্রিল ৬, ২০২১
‘আইএস যোদ্ধা’ অপবাদ দেওয়ায় তসলিমাকে ধুয়ে দিলেন ক্রিকেটররা

স্পোর্টস ডেস্ক:

তসলিমা নাসরিনের ইসলাম-বিদ্বেষের কথা কারও অজানা নয়। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের বিরুদ্ধে সবসময়ই সরব ভূমিকায় দেখা যায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে নির্বাসিত এই লেখিকাকে। এবার ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার মঈন আলিকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে তোপের মুখে পড়লেন তিনি।

ইংলিশ অলরাউন্ডার মঈন আলী একজন ধার্মিক মানুষ। ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে তিনি মদ্যপান সমর্থন করেন না।
সেই বিশ্বাস থেকেই আইপিএলে তার দল চেন্নাই সুপার কিংসকে (সিএসকে) নিজের জার্সি থেকে মদ প্রস্তুতকারক সংস্থার লোগো সরিয়ে নিতে বলেছিলেন। তার অনুরোধ রাখাও হয়েছে। ফলে মঈন এখন মদের লোগো ছাড়া জার্সি পরতে পারবেন।

নিজের ধর্মের প্রতি বিশ্বস্ত থাকতে মঈন আলী কোনো মদ্য প্রস্তুতকারক সংস্থাকে প্রমোট করেন না। এর আগে কোহলির দল ব্যাঙ্গালুরুর জার্সি হোক, বা ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের জার্সি- সব ক্ষেত্রেই মঈন এই রীতি মেনে চলেছেন। চেন্নাইর নতুন জার্সিতে SNJ 10000 এর লোগো আছে। যা চেন্নাইয়ের পানীয় প্রস্তুতকারক কোম্পানি ‘এসএনজে’র একটি শাখা। মঈনের অনুরোধ রেখেই সিএসকে তার জার্সি থেকে সংশ্লিষ্ট লোগো সরিয়ে দিয়েছে।

কিন্তু তসলিমা নাসরিনের এটা নিয়ে ‘বড় মাথাব্যথা’। ইসলাম-বিদ্বেষী এই লেখিকা হুট করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে টুইট করে বসেন, ‘যদি মঈন আলি ক্রিকেটে না আসতো, তবে নিশ্চিত সে সিরিয়ায় গিয়ে আইএসের সঙ্গে যোগ দিতো।’

If Moeen Ali were not stuck with cricket, he would have gone to Syria to join ISIS.
— taslima nasreen (@taslimanasreen) April 4, 2021

তসলিমা এই টুইট দিয়ে মূলত শুশ্রুমন্ডিত মঈনকে আক্রমণ করেছেন সন্ত্রাসী সংগঠন আইএসের সঙ্গে নাম জড়িয়ে। যা নিয়ে ভীষণ সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। ইংলিশ ক্রিকেটে এ নিয়ে চলছে তোলপাড়। জোফরা আর্চার, বেন ডাকেট, স্যাম বিলিংস থেকে শুরু করে ইংলিশ ক্রিকেটাররা দারুণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন তসলিমার ওপর। তার টুইটারে ক্ষোভ ঢেলে দিচ্ছে তসলিমার এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে।

সবার আগে তসলিমার এই টুইটের জবাব দেন ইংলিশ পেসার সাকিব মাহমুদ। সতীর্থকে অবমাননা করাটা মেনেই নিতে পারছেন না তিনি। সাকিব লিখেছেন, ‘বিশ্বাসই হচ্ছে না এই বিষয়টা। বিরক্তিকর টুইট, বিরক্তিকর এক ব্যক্তি।’

Can’t believe this. Disgusting tweet. Disgusting individual https://t.co/g8O1MWyR81
— Saqib Mahmood (@SaqMahmood25) April 6, 2021

তবে ঘটনার এখানেই শেষ নয়। তসলিমা পরে আরও এক টুইটে লিখেছেন, ‘হেটার্সরা ভালো করেই জানে মঈন আলীকে নিয়ে আমার টুইটটি ছিল নিছক মশকরা। কিন্তু তারা এটাকে একটা ইস্যু বানিয়ে আমাকে আক্রমণ করছে কারণ আমি মুসলিম সমাজকে সেক্যুলার বানানোর চেষ্টা করছি এবং আমি ইসলামি গোঁড়ামির বিরোধিতা করছি। মানব সভ্যতার সবচেয়ে বড় ট্রাজেডি হলো, নারীবাদী বামরা নারী-বিরোধী ইসলামিস্টদের সমর্থন করে। ‘

তসলিমার এই টুইটও রি-টুইট করেছেন আর্চার। তিনি লিখেছেন, ‘মশকরা? কেউ তো হাসছে না, এমনকি আপনি নিজেও না। আপনি অন্তত যেটা করতে পারেন, টুইটটা ডিলিট করে দিতে পারেন। ’

Sarcastic ? No one is laughing , not even yourself , the least you can do is delete the tweet https://t.co/Dl7lWdvSd4
— Jofra Archer (@JofraArcher) April 6, 2021

Are you okay ? I don’t think you’re okay https://t.co/rmiFHhDXiO
— Jofra Archer (@JofraArcher) April 6, 2021

মঈন আলির আরেক সতীর্থ স্যাম বিলিংসও মেনে নিতে পারছেন না বিষয়টা। বরং তিনি সবাইকে আহ্বান জানিয়েছেন, তসলিমার অ্যাকাউন্টকে রিপোর্ট করার জন্য (যাতে টুইটার কর্তৃপক্ষ এটা মুছে দেয়)। তিনি লিখেছেন, ‘প্লিজ এভরিওয়ান রিপোর্ট দিস অ্যাকাউন্ট।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •